বিশ্ব.কম হোম, বিজ্ঞান, ফিডব্যাক,অংশ নিন fb page

পৃষ্ঠা

সোমবার, ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৪

যে লোক মাটি, পাথর আর ইট খায়

তার নাম পাকিরাপা হুনাগুন্ডি। বয়স ৩০। সাবাড় করেছেন টনখানেক ইট। বাড়ি ভারতের কর্নাটকে। তিনি প্রতি দিন এই ধরণের আবর্জনা তিন কেজি করে খান! ডেইলি মেইল। খবরটি ২ এপ্রিল, ২০১৪ তারিখের।[নিচে ভিডিও দেখুন]
এটা আসলে একটা রোগ। নাম, পিকা। এই রোগে আসক্ত ব্যক্তি খাবার অযোগ্য জিনিসের প্রতি আসক্ত হয়ে পড়ে।
 দশ বছর বয়সে এই বাতিকে আক্রান্ত হন তিনি। তার পর থেকে খাবার বা নাস্তার সময় হলেই ছুটে যান মাটির, ইটের বা পাথরের দেয়াল বা স্তুপের কাছে।
 তার দাবী, এসব জিনিস খেয়েও তিনি দিব্যি বহাল তবিয়তে আছেন।
 তিনি বলে, "আমি ২০ বছর ধরে ইট, মাটি, পাথর খাচ্ছি। আমার এগুলো খেতে দারুণ লাগে। এটা আমার জীবনের অংশ হয়ে গেছে। শুর করেছিলাম ১০ বছর বয়সে। কিন্তু এখন এটা আমার জন্য অবিচ্ছেদ্য হয়ে গেছে। আমি অন্য খাবার ছাড়তে পারি কিন্তু ইট, মাটি নয়।"
"আমার কোন বিরূপ প্রতিক্রিয়া হয়নি। আমি নির্বিঘ্নে সবচেয়ে শক্ত পাথরে দাঁত বসাতে পারি।"
 তিনি বাড়ির একটা অংশ সাবাড় করে দিয়েছেন। তার মা তাকে এ অভ্যাস থেকে ফিরাতে পারেননি। হুনাগুন্ডির মতে নির্মাণ সামগ্রীই হচ্ছে A1 (সবচেয়ে ভালো) মানের স্বাদ। তিনি বলেন, "আমাকে ইট, মাটি, পাথরের বদলে মধু দিলেও নেবো না।"
 একজন গ্রামবাসী বলেন,"আমি তাকে ছোট বেলা থেকে চিনি। সে সব সময়ই মাটি, পাথর খেয়ে এসেছে। এক খণ্ড ছোট পাথরও মুখে বিষম আঘাত দেয়। অথচ সে সাবলীলভাবে খেয়ে যাচ্ছে"
এই অদ্ভুত কাণ্ডের খবর শুনে দূর দূরান্ত থেকে মানুষ তাকে দেখতে ভীড় করে।
তার এক বন্ধু বলনে, "সে কেউকেটা হয়ে গেছে, কিন্তু, বেচারা খুব গরীব। তাকে দেখলে আমাদের দুঃখ হয়। বোঝানোর চেষ্টা করেছি, কাজ হয়নি। এখন আর বোঝাই না।"
জনাব হুনাগুন্ডি, গ্রামের এক সাধারণ শ্রমিক যার নূন আনতে পান্তা ফুরোয়। এখন তিনি ঘুরে তার বিচিত্র কাজ মানুষকে দেখাবেন বলে ভাবছেন।
 তবে তিনি মায়ের প্রতি যত্নশীল।
তিনি বলেন,"বাবা মারা গেছেন ৪ বছর আগে। আমাকে মায়ের দেখাশোনা করতে হয়। আমার আয় রোজগার বেশি না, তাই এবার মেধা কাজে লাগাতে চাই।"
"আমি মানুষকে দেখাতে চাই আমার দক্ষতা,চাই কিছু অর্থ কামাতে"

সূত্রঃ
http://www.dailymail.co.uk/news/article-2595087/Indian-villager-addicted-eating-mud-rocks-BRICKS-gets-three-kilos-debris-day.html
Reactions:

0 comments:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন